,

সংবাদ শিরোনাম :

শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের প্রশংসায় ভারতীয় হাই কমিশনার

ডেস্ক রিপোর্ট : শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন ঢাকাস্থ ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। তিনি বলেন, শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক ১৯১৬ সাল থেকে ১৮ সাল পর্যন্ত ভারতবর্ষের কংগ্রেসের সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। আমি তার পূন্যভূমি চাখারে আসতে পেরে খুব খুশি।
রোববার বেলা আড়াইটায় বানারীপাড়া উপজেলার চাখারে শেরে বাংলা প্রতিষ্ঠিত সরকারি ফজলুল হক কলেজে সুধীজনদের সঙ্গে মতবিনিয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।
শ্রিংলা বলেন, শেরে বাংলা এ.কে ফজলুল হক শুধু ভারতবর্ষের রাজনীতির মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিলেন না। তিনি ব্রিটিশ শাসনেরও বিরোধিতা করেছিলেন।
তিনি বলেন, শেরে বাংলা এই চাখারেই নয়, তার নামে ঢাকাসহ বরিশাল অঞ্চলে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে ওঠেছে। তিনি তার নামে যুবকদের উন্নয়নে শেরে বাংলা ফাউন্ডেশনেরও প্রশংসা করেন।
এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বরিশাল-২ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস এ অঞ্চলের সর্বস্তরের মানুষের পক্ষ থেকে বন্ধুপ্রতীম ভারতের হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী (কংগ্রেস নেত্রী) ইন্দিরা গান্ধীর সঙ্গে প্রথম চুক্তি বাস্তবায়ন হয়েছে।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ সেই চুক্তি বাস্তবে রূপ পেয়েছে।
এমপি ইউনুস বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে। আগামীতেও নৌকা প্রতীকে বিজয়ী করার মাধ্যমে আবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বে এ দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে।চাখার সরকারি ফজলুল হক কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. গোকুল চন্দ্র বিশ্বাসের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তৃতা রাখেন শেরে বাংলার দৌহিত্র ফাইয়াজুল হক রাজু।
অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ প্যানেল চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাওলাদ হোসেন সানা, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (উজিরপুর সার্কেল) মো. আকরামুল হাসান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আব্দুল্লাহ্ সাদীদ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সুখেন্দু শেখর বৈদ্য, থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান খিজির সরদার, রাহাদ আহমেদ ননী, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মজিবুল ইসলাম টুকু প্রমুখ।
এর আগে ভারতের হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা চাখার শেরে বাংলা যাদুঘর পরিদর্শ করেন। তিনি ওই যাদুঘরের পরিদর্শন বইতে স্বাক্ষর করেন। পরে তাকে ফুল ও ক্রেষ্ট দিয়ে শুভেচ্ছা জানান শেখ হাসিনা পরিষদের সভাপতি ক্যাপ্টেন এম. মোয়াজ্জেম হোসেন, কলেজের শিক্ষক, মক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *