,

সংবাদ শিরোনাম :

যশোরে দোকানিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

রাজিবুল হাসান নাজমুল যশোর ব্যুরো : যশোরে কামাল হোসেন বাবু (৪৫) নামের এক দোকানিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে শহরের জামরুলতলা এলাকায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে মুখ ও হাত-পা বাঁধা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করা হয়। দোকান থেকে নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত কামাল যশোর সদরের তরফ নওয়াপাড়া এলাকার মৃত শাহাদত ফকিরের ছেলে। নিহতের ভাই আব্দুর রহিম বলেন, কামাল হোসেন বাবুর জন্ম থেকেই পা দুটি বাঁকা। তিনি জামরুলতলা স মিলের পাশে মুদি দোকানের পাশাপাশি চায়ের দোকান চালাতেন। এছাড়া স্থানীয় কয়েকজন মিলে টাকা জমা করে নির্দিষ্ট একটি দিনে লটারির মাধ্যমে সেই টাকা একজনকে দেওয়ার দায়িত্বে ছিলেন। স্থানীয় ভাষায় একে ‘সিরিয়াল’ বলে। বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) সেই সিরিয়ালের লটারির দিন ছিল এবং তার কাছে এক লাখ টাকার মতো ছিল। স্থানীয় তালবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই সাহাবুল আলম জানান, পুলিশ এসে মরদেহ দোকানের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখে। তার মুখ স্কচটেপ দিয়ে আটকানো ছিল। এছাড়া হাত-পা বাঁধা এবং গলায় স্যালাইনের পাইপ ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর দোকানে থাকা নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। দোকানের ক্যাশ ড্রয়ার ও মালামাল এলোমেলো অবস্থায় রয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।
যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৭ লাখ হুন্ডির টাকা উদ্ধার
রাজিবুল হাসান নাজমুল যশোর ব্যুরো : যশোরের বেনাপোল সীমান্তে ভারত থেকে পাচার হয়ে আসা হুন্ডির ৭লাখ টাকা আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)সদস্যরা। শুক্রবার সকালে বেনাপোল সদীপুর পোঁতাপোষ্ট এলাকা থেকে পরিত্যাক্ত ৭ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। তবে এসময় কোনো পাঁচারকারীকে আটক করতে পারিনি বিজিবি। যশোর-৪৯ বিজিবির আইসিপি ক্যাম্পের সুবেদার আব্দুল ওহাব বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি ভারত থেকে পাচার হয়ে আসা এক পাচারকারী হুন্ডির টাকা নিয়ে বেনাপোল সাদীপুর পোঁতাপোষ্টের সামনে অবস্থান করছে। এমন সংবাদে বিজিবির ল্যান্সস নায়েক নুর আলমের নেতৃত্বে ৫ জন ফোর্স সেখানে অভিযান চালিয়ে একটি ব্যাগ থেকে ৭ লাখ হুন্ডির টাকা উদ্ধার করে। বেনাপোল আইসিপি ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুল ওহাব জানান, আটককৃত টাকা বেনাপোল পোর্ট থানায় জমা দেওয়া হয়েছে।
যশোর বিআরটিএ’র আইটি অফিসার নিখোঁজ !
রাজিবুল হাসান নাজমুল যশোর ব্যুরো ঃ যশোর বিআরটিএ’র আইটি প্রজেক্টের এনরোলমেন্ট অফিসার বোরহান উদ্দিন প্রিন্স নিঁেখাজ। গত ১৩ নভেম্বর রাত ৮টার পর অফিস থেকে বের হওয়ার পর তিনি নিখোঁজ হন। এই ঘটনায় তার স্ত্রী শেফালী আক্তার রীমা কোতয়ালি থানায় একটি জিডি করেছেন। জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, যশোর বিআরটিএ’র আইটি প্রজেক্টের এনরোলমেন্ট অফিসার বোরহান উদ্দিন প্রিন্স শহরের খালধার রোডস্থ একটি বাড়িতে তারা ভাড়া থাকেন। ১৩ নভেম্বর রাত ৮টার দিকে তিনি অফিস থেকে রেব হন। এরপর তিনি বাড়িতে ফেরেননি। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনসেটটিও বন্ধ পাওয়া যায়। তবে ১৪ নভেম্বর ফোনটি খোলা হয় কিন্তু কল করা হলেও কেউ রিসিভ করেনি। ফলে তার জীবনাশংকায় আছে পরিবারের লোকজন।এদিকে, এই বিষয়ে কোতয়ালি থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই আমিরুজ্জামান বলেছেন, বিআরটিএ’র ওই কর্মকর্তার মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে তার খোঁজ নেয়া হয়েছে। তিনি খুলনায় আছেন বলে জানতে পেরেছি। সম্ভবত কোন নারী ঘটিত কারণে তিনি স্বেচ্ছায় পরিবারের কাউকে না বলে চলে গেছেন। বিষয়টি তার পরিবারের সদস্যদের অবহিত করা হয়েছে। এখন তারাই (পরিবারের সদস্যরা) পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করছে।

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *